1. rajubdnews@gmail.com : admin :
  2. 52newsbangla@gmail.com : News 52 Bangla : Nurul Huda News 52 Bangla
  3. 52newsbangla1@gmail.com : News 52 Bangla : Nurul Huda News 52 Bangla
বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৮:২৭ পূর্বাহ্ন
সর্বশেষ সংবাদ :
সমস্যা ও আর্থিক সংকটের ফলে চুরি বাড়ছে কাপ্তাই নতুনবাজারে ওপেন হাউজ ডে কাউখালীতে সমবায় সমিতির সদস্যদের দিনব্যাপী প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত কাউখালীতে সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের কিশোরীদের সচেতনতামূলক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত দেবহাটায় কুকুরের টিকাদান (এমডিভি) কার্যক্রম বাস্তবায়ন করতে অবহিতকরণ সভা আখাউড়ায় চার কেজি গাঁজা সহ গ্রেফতার ৩ কাউখালীতে বিএনপির নেতাদের মুক্তির দাবিতে প্রতিবাদ সভা স্ত্রী ও দুইটা সন্তান নিয়ে বাঁচতে চায় হরিনাকুন্ডুর শওকত কাউখালীতে জাটকা ইলিশ জব্দ কাপ্তাইয়ে টিসিবির পণ্য পেতে দীর্ঘ লাইন কাউখালীতে কিশোরীদের দিনব্যাপী সচেতনতামূলক প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠিত

প্রধান মন্ত্রীর জনসভায় সব ছিল, ছিলেন না সুরঞ্জিত

প্রতিবেদকের নাম :
  • আপডেটের সময় : বুধবার, ৩১ জানুয়ারী, ২০১৮

সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি: সিলেটে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার জনসভায় আওয়ামী লীগের স্থানীয় ও জাতীয় পর্যায়ের সকল নেতা মঞ্চে ছিলেন, কেবল ছিলেন না সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত। স্মরণের আবরণে ঢাকা ছিলেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী স্মরণ করেছেন তাঁকে, স্মরণ করেছেন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসাইন সহ আরও কয়েকজন বক্তা। ২০১৬ সালের ২১ জানুয়ারি সিলেটের আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপস্থিতিতে জনসভায় সর্বশেষ ভাষণ দিয়েছিলেন। ঐ দিন সিলেটের উন্নয়ন সম্পর্কিত একাধিক দাবি জানিয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে বলেছিলেন, আমাদের দাবি পূরণের ঘোষণা দিয়ে যাইয়েন, আল্লাহর দোহাই।

সেদিন প্রধানমন্ত্রী সুরঞ্জিতের দাবিগুলোর প্রতি সম্মান জানিয়েছিলেন, আশ্বাস দিয়েছিলেন দাবি পূরণের; এবং অনেকগুলো আছে বাস্তবায়নাধীনও।

মঞ্চে ওঠে স্বভাবসুলভ হাস্যরসাত্মক ঢংয়ের বক্তৃতার জন্যে খ্যাতি পাওয়া সুরঞ্জিতের অভাব বোধ করেছেন অনেকেই। জনসভায় উপস্থিত অনেকের মাঝে ছিল সে হাহাকার।
সাবেক ছাত্রনেতা এম রশীদ আহমেদ এ প্রসঙ্গে বলেন, সিলেট আলিয়া মাদ্রাসা মাঠের জনসভায় আগত নেতাকর্মীদের মাঝে বার বার একটি নামই উচ্চারিত হয়েছে। সকাল থেকে আগত কর্মীরা যখন স্লোগানে ক্লান্ত হয়ে যেত তখন সকলের জন্য উজ্জিবনী শক্তি হয়ে মাইকে দাঁড়াতেন উপমহাদেশের প্রখ্যাত পার্লামেন্টারিয়ান, বাংলাদেশের সংবিধান প্রণেতাদের একজন, ভাটির শার্দূল খ্যাত সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত। তার চিরচেনা ভঙ্গিতে বক্তৃতা শুরু করলেই ক্লান্তি ঝেড়ে নতুন উদ্যমে উজ্জীবিত হতো কর্মীরা। তিনি বলেন, আজ জননেত্রী শেখ হাসিনার আলিয়া মাঠের জনসভায় সকলের প্রিয় সেন দা’র শূন্যতা ছিল নেতা কর্মীদের মুখে মুখে। ছিল অফুরান আফসোস। প্রিয় নেতা বেঁচে নেই ঠিকই কিন্তু তিনি আছেন মানুষের অন্তরে অন্তরে।

২০১৬ সালের জনসভায় সুরঞ্জিত সেনগুপ্ত সিলেটের উন্নয়ন প্রসঙ্গে বলেছিলেন, ‘সিলেটের হলো ছয় জেলা। এইখানে চারটা। আর একটা লন্ডন, আরেকটা নিউইয়র্ক। ফলে এই এলাকার উন্নয়ন করতে হবে।’

উল্লেখ্য, ২০১৭ সালের ৫ ফেব্রুয়ারী রাজধানী ঢাকার একটি হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন আওয়ামী লীগের বর্ষীয়ান নেতা ও সাংসদ সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত।

সংবাদটি শেয়ার করুন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

এই বিভাগের আরও খবর
2019 All rights reserved by |Dainik Donet Bangladesh| Design and Developed by- News 52 Bangla Team.
Theme Customized BY News52Bamg;a